শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ০৪:৪০ অপরাহ্ন

হাতিয়ায় আগাছানাশক বিষ ছিটিয়ে আমন ধান নষ্ট করেছে প্রতিপক্ষ

দিগন্তের বার্তা ২৪ ডেস্ক : / ২৫০ বার পঠিত
আপডেট : বুধবার, ৩০ আগস্ট, ২০২৩, ৯:৫২ অপরাহ্ণ

ছায়েদ আহমেদ, হাতিয়া (নোয়াখালী)ঃ নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের রেহানিয়া গ্রাম আজিজিয়া এলাকায় বলপ্রয়োগে চাষের জমি দখলের অপচেষ্টায় আগাছানাশক বিষ ছিটিয়ে পঁচাত্তর শতক জমির ধান নষ্ট করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। ভুক্তভোগী কৃষক আব্দুর রহমান’দের দাবি জলাবদ্ধতায় বীজতলা নষ্ট হয়ে যাওয়ায় নতুন করে জালা কিনে জমি রোপন করতে হয়েছে,অথচ প্রতিপক্ষ সেই জমিতে বিষ ছিটিয়ে তাদের পুরো ধান খেত নষ্ট করে ফেলেছে। এঘটনায় কোর্টে মামলা দায়েরের প্রস্তত্তি চলছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

জানা গেছে, উপজেলার চরকিং ইউনিয়নের শুল্লকিয়া গ্রামের হাজী ইদ্রিস মিয়ার ছেলে হেদায়েত উল্যা(৮০) ওয়ারিশ সূত্রে প্রাপ্ত জমি মূল খতিয়ান থেকে নামজারি জমাখারিজ করে আলাদা হয়ে যান। পরবর্তীতে হেদায়েত উল্যার পূর্বের স্ত্রী-সন্তান’রা তাকে অবজ্ঞা-অবহেলা করে গৃহ থেকে বের করে দিলে জীবীকা এবং চিকিৎসার প্রয়োজনে সে তার সর্বশেষ স্ত্রী সহ বুড়িরচর সাগরিয়া মৌজা’র ৭৫ শতাংশ জমি বিগত ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২খৃঃ ৩১৭১ নং ছাপ কবলা দলিল মূলে আবদুর রহমান, তানজিদ উদ্দিন এবং মোঃ আবু তাহের নামক ব্যক্তিদের থেকে বিক্রি করে। পরে তানজিদ উদ্দিন, মোঃ আবু তাহের এবং আব্দুর রহমান তাদের ক্রয়কৃত উক্ত সম্পত্তি নিজেদের নামে নামজারি জমাখারিজ করেন। যাহা ক্রয়পরবর্তী সময় থেকে এখন পর্যন্ত ভোগদখলে রয়েছে ক্রেতাপক্ষ তথা ক্ষতিগ্রস্ত পক্ষ।

এদিকে, হেদায়েত উল্যার বিক্রিত জমি দখলের অপচেষ্টায় তার ছেলে সুমন(৩৮) সহ তার মৃত ভাই নিজাম উদ্দিনের স্ত্রী আমেনা বেগম(৪৫) জোরপূর্বক ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তার দ্বারা উক্ত নামজারি জমাখারিজ বাতিলের জন্য উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি)’র নিকট সুপারিশ করতে বাধ্য করেন বলে জানান বুড়িরচর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোঃ আব্দুর রহিম। একইদিন সোমবার(২৮ আগস্ট) দুপুরে উক্ত জমির রোপিত আমন ধান বিষ ছিটিয়ে পুরোপুরি নষ্ট করে দেয় বিক্রেতার ছেলে এবং মৃত ভাইয়ের বৌ আমেনা বেগম। এতে ব্যাপক ক্ষতির শিকার হন ক্রেতাপক্ষ। যার ফলস্রুতিতে ক্রেতা আব্দুর রহমান’রা এসিল্যান্ড বরাবর তদন্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে নারাজি আবেদন দাখিল করেন আজ বুধবার ৩০ আগস্ট।

উল্লেখ্য, আগাছানাশক বিষ ছিটানো জমির মূল মালিক হেদায়েত উল্যা এবং ক্রেতা পক্ষের তিনটি নামজারি জমাখারিজ খতিয়ান সম্পন্ন করেন বুড়িরচর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোঃ আব্দুর রহিম। অথচ প্রতিপক্ষের চাপে পড়ে তিনি-ই আবার সেই নামজারি জমাখারিজের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দেন।

এবিষয়ে হাতিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ গোলাম সরওয়ার জানান, দুই পক্ষের উপস্থিততে শুনানি করে এর সমাধান করা হবে।

Facebook Comments Box


এ জাতীয় আরও খবর
এক ক্লিকে বিভাগের খবর