1. admin@digonterbarta24.com : admin :
সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:১৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
করোনা ও ওমিক্রন থেকে রক্ষা পেতে সবাইকে ভ্যাকসিনের আওতায় আসতে হবেঃ সিভিল সার্জন বান্দরবানে পৃথক ২টি মাদক মামলার জব্দকৃত আলামত ধ্বংস উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রোগ্রামের শিক্ষির্থীদের করোনা প্রদান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেলে আগুন, নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস বাগেরহাট প্রেসক্লাবের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ মীরসরাইয়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা, গ্রেপ্তার ২ হাতিয়ায় ২ ইউপিতে চেয়ারম্যান সহ সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত  নড়াইলে অস্ত্র মামলায় ১জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড বাগেরহাটে মোসাফির ব্লাড ডোনারস ক্লাবের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠিত কোভিট-১৯ এর জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে বান্দরবানে মোবাইলকোর্ট পরিচালনা

এ বছরের মধ্যে চট্টগ্রামে হাইকোর্টের সার্কিট বেঞ্চ : আইনমন্ত্রী

দিগন্তের বার্তা ২৪ ডেস্ক
  • সময় : রবিবার, ১৬ জানুয়ারি, ২০২২
  • ২৯ বার পঠিত

জাতীয় ডেস্কঃ চলতি বছরের মধ্যে চট্টগ্রামে হাইকোর্টের একটি সার্কিট বেঞ্চ হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। আজ শনিবার চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতি আয়োজিত আইনজীবী মিলনমেলায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘চট্টগ্রামে একটা হাইকোর্ট বেঞ্চের দাবি আপনাদের। বিষয়টি নিয়ে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি আশ্বস্ত করেছেন। আশা করি এ বছর শেষ হওয়ার আগেই চট্টগ্রামে হাইকোর্টের একটি সার্কিট বেঞ্চ হবে।’

চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির মিলনমেলার প্রশংসা করে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘ঢাকা বারের পর সব থেকে বড় বার হচ্ছে চট্টগ্রাম বার। রাজনৈতিক মতভেদ ভুলে আপনারা যে মিলনমেলার আয়োজন করেন, সেটা কিন্তু দেশের সব বারই ফলো করে।

তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন প্রধানমন্ত্রী আইন পেশা ও আইনজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। বাংলাদেশ জন্মের আগে যত আন্দোলন এবং বঙ্গবন্ধুর যত প্রচেষ্টা ছিল, তৎকালীন সারা দেশের আইনজীবীরা বঙ্গবন্ধুর পাশে ছিলেন। যত গণতান্ত্রিক আন্দোলন হয়েছে, সবগুলোতে আইনজীবীরা মুখ্য ভূমিকা পালন করেছেন।

আনিসুল হক আরও বলেন, ‘দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এখন কিন্তু অপরাধ করলে তাকে সাজা ভোগ করতেই হবে। অপরাধ করে এখন আর পার পাওয়া যাবে না। বিচারহীনতার সংস্কৃতি দূর হয়েছে।’

এরশাদের আমলে ১৯৮২ সালের ১১ মে চট্টগ্রামে হাইকোর্টের একটি স্থায়ী বেঞ্চ প্রতিষ্ঠা হয়। পরে ১৯৮৬ সালের ১৭ জুন সামরিক ফরমানের ৪ (এ) ধারা সংশোধন করে স্থায়ী বেঞ্চকে সার্কিট বেঞ্চ (অস্থায়ী) করা হয়।

১৯৮৬ সালে সংবিধান পুনরুজ্জীবনের পর সংবিধানের অনুচ্ছেদ-১০০ অনুসারে সার্কিট বেঞ্চের বিধান থাকায় চট্টগ্রামসহ দেশের ছয়টি সার্কিট বেঞ্চ বহাল থেকে যায়।

এরপর ঢাকার আইনজীবীদের একাংশ সার্কিট বেঞ্চ ফিরিয়ে নেওয়ার আন্দোলন করলে সংবিধানের অষ্টম সংশোধনীর ২(ক) অনুচ্ছেদ অনুসারে, ছয়টি সার্কিট বেঞ্চকে আবার স্থায়ী বেঞ্চের মর্যাদা দেওয়া হয়।

পরে ১৯৮৯ সালের ২ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ হাইকোর্ট বিকেন্দ্রীকরণ সংক্রান্ত অষ্টম সংশোধনীর ২ (ক) অনুচ্ছেদটি বাতিলের আদেশ দিলে চট্টগ্রাম, রংপুর, যশোর, বরিশাল, কুমিল্লা ও সিলেটের হাইকোর্ট বেঞ্চগুলো ঢাকায় ফিরিয়ে নেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন, সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার মো. রুহুল কুদ্দুস কাজল, আইন সচিব মো. গোলাম সারওয়ার, চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ শেখ আশফাকুর রহমান, চট্টগ্রামের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. রবিউল আলম, চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মুহাম্মদ এনামুল হক ও সাধারণ সম্পাদক এএইচএম জিয়াউদ্দিন বক্তৃতা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © দিগন্তের বার্তা ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD