1. admin@digonterbarta24.com : admin :
বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৩১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কক্সবাজারে বিমানবন্দরের রানওয়েতে বিমানের ধাক্কায় ২ গরুর মৃত্যু নলছিটিতে বিজয় দিবসের প্রস্তুতী সভা অনুষ্ঠিত রাজাপুর বড়ইয়া ডিগ্রী কলেজ’র এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা ঝালকাঠি সরকারি কলেজে নবাগত উপাধ্যক্ষের যোগদান শ্রীমঙ্গল থানা প্রশাসনের উদ্যোগে নৈশপ্রহরীদের মাঝে বিভিন্ন উপকরণ বিতরণ বাগেরহাটে যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত ইউ এন ও এর হস্তক্ষেপে বন্ধ হলো বাল্য বিবাহ মিডিয়া অঙ্গনে আলোচনার কেন্দ্র বিন্দু বিটিভি চট্টগ্রামের ধারাবাহিক ‘জলতরঙ্গ’ মীরসরাইয়ে আইনশৃঙ্খলা কমিটি ও মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত রাঙামাটিতে দুষ্কৃতীকারীদের গুলিতে জেএসএস’র শীর্ষ নেতা নিহত

জুরাছড়ি বেনুবন অরণ্য কুটিরে ১ম বারের মত কঠিন চীবর দান উদযাপন

দিগন্তের বার্তা ২৪ ডেস্ক
  • সময় : শনিবার, ১৩ নভেম্বর, ২০২১
  • ২১৬ বার পঠিত

তুফান চাকমা, নানিয়ারচর প্রতিনিধিঃ- গৌতম বুদ্ধের প্রধান সেবিকা মহাপুণ্যবতী বিশাখা কর্তৃক প্রবর্তিত নিয়মে কঠিন চীবর দানোৎসবকে ঘিরে ধর্মীয় নানা আচার ও উৎসব উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে রাঙ্গামাটি জেলার নানিয়ারচরের জুরাছড়ি বেনুবন অরণ্য কুটিরের ১ম বারের মত শুভ দানোত্তম কঠিন চীবর দান উদযাপিত হয়েছে।

১২ নভেম্বর শুরু হওয়া দু’দিন ব্যাপী চীবর দান অনুষ্ঠানে দূর দূরান্ত থেকে হাজারো পূর্ণ্যার্থীর সমাগমে বিহার প্রাঙ্গণ উৎসব মুখর হয়ে উঠে।

শনিবার (১৩ নভেম্বর) সকাল ৯টায় নিশা চাকমার সঞ্চালনায় উদ্ভোদনী সংগীত পরিবেশনের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করা হয়। অনুষ্ঠানে পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন লোনা চাকমা এবং প্রদান করেন রাজবন বন বিহারের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ প্রজ্ঞালঙ্কার মহাস্থবির।

অনুষ্ঠান মঞ্চে সঙ্ঘ প্রধান হিসেবে উপবিষ্ট ছিলেন রাজবন বন বিহারের আবাসিক প্রধান শ্রীমৎ প্রজ্ঞালঙ্কার মহাস্থবির।

আরও উপবিষ্ট ছিলেন, কাটাছড়ি রাজবন ভাবনা কেন্দ্রের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ ইন্দ্র গুপ্ত মহাস্থবির, বোধিপুর বন বিহারের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ জিন বোধি মহাস্থবির , শ্রীমৎ জ্ঞানপ্রিয় মহাস্থবির, শ্রীমৎ সত্য প্রেম মহাস্থবির, তক্ষশীলা বন বিহারের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ করুনাবদ্ধন মহাস্থবির, শ্রীমৎ মহামিত্র মহাস্থবির, জুরাছড়ি বেনুবন অরণ্য কুটিরের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ পন্থক মহাস্থবির সহ বিভিন্ন বিহার থেকে আমন্ত্রিত ভিক্ষু সঙ্ঘরা উপস্থিত ছিলেন।

দিন ব্যাপি এই পূণ্যানুষ্ঠানে বুদ্ধ মূর্তি দান, কঠিন চীবর দান, সঙ্ঘ দান, অষ্টপরিষ্কার দান, কল্পতরু দান, বিশ্বশান্তি প্যাগোডা উদ্দেশ্য টাকা দান, আকাশ প্রদীপ দান সহ নানাবিধ দানের কার্য সম্পাদিন করা হয়।

দানের পর্ব শেষে সঙ্ঘ প্রধান শ্রীমৎ প্রজ্ঞালঙ্কার মহাস্থবির ভিক্ষুকে চীবর প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য চট্রগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ও নানিয়ারচর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইলিপন চাকমা,জেলা পরিষদের সদস্য ঝর্ণা খীসা, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রাক্তন উপমন্ত্রী মনিস্বপন দেওয়ান, রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সুখময় চাকমা, নানিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ সুজন হালদার, নানিয়ারচর হেডম্যান এসোসিয়েশন সভাপতি সুজিত তালুকদার, বিহার পরিচালনা কমিটির সভাপতি রুপায়ন চাকমা, সাধারণ সম্পাদক বিপিন চাকমাসহ হাজারো পূর্ণ্যার্থীবৃন্ধ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জুরাছড়ি বেনুবন অরণ্য কুটির পরিচালনা কমিটির সভাপতি রুপায়ন চাকমা।
বক্তব্য রাখেন আরও পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রাক্তন উপমন্ত্রী মনিস্বপন দেওয়ান, জেলা পরিষদের সদস্য ইলিপন চাকমা প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে নিখিল কুমার বলেন, প্রত্যেক কে তার ধর্ম রক্ষায় কাজ করতে হবে। যাদের কষ্ট পরিশ্রমে এত সুন্দর কঠির চীবর দান অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন তাদের সকলকেই ধন্যবাদ।

তিনি আরো বলেন, সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা ছাড়া এলাকার উন্নয়ন সম্ভব নয়। রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদে থাকাকালীন এই এলাকার উন্নয়নে কাজ করেছি। পার্বত্যাঞ্চলের উন্নয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে উন্নয়ন বোর্ডের দায়িত্ব দিয়েছেন। আমি তার প্রতি কৃতজ্ঞ।

এসময় তিনি পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক এই এলাকা হতে রামহরি পাড়া পর্যন্ত ৪কিলোমিটার সড়ক নির্মানের কথা জানান। এই সড়ক নির্মাণ হলে স্থানীয়দের শিক্ষা চিকিৎসা ও যোগাযোগ ব্যবস্থায় দ্রুত উন্নয়ন হবে বলে মন্তব্য করেন।

উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান এসময় বৌদ্ধ সংঘের নিকট প্রধানমন্ত্রী ও দেশবাসীর মঙ্গল কামনায় আশীর্বাদ কামনা করেন।

বিশেষ অতিথি ইলিপন চাকমা বক্তব্যে বলেন, জুরাছড়ি এলাকাবাসীর স্বদিচ্ছায় এবং ভান্তের আন্তরিকতায় ১ম বারের মত শুভ কঠিন চীবর দান সম্ভব হয়েছে। এতে দূর দূরান্ত থেকে অনেক পূর্ণ্যার্থীর পূণ্য সঞ্চয় করার সুযোগ হয়েছে।

এসময় ইলিপন চাকমা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং জননেতা দীপংকর তালুকদার এমপির প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। তাদের আন্তরিকতায় এ বছর সর্বোচ্ছ কঠিন চীবর দানের পূণ্যানুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পেরেছি। তিনি তাদের সুস্থতা ও দীর্ঘায়ুর জন্য পূজনীয় ভিক্ষু সঙ্ঘের কাছে আশির্বাদ কামনা করেন।

ভগবান বুদ্ধের অমৃতবাণী স্বধর্ম দেশনা প্রদান করেন, রাজবন বিহারে আবাসিক প্রধান, শ্রীমৎ প্রজ্ঞালঙ্কার মহাস্থবির, কাটাছড়ি রাজবন ভাবনা কেন্দ্রের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ ইন্দ্র গুপ্ত মহাস্থবির, শ্রীমৎ জ্ঞানপ্রিয় মহাস্থবির, শ্রীমৎ মহামিত্র মহাস্থবির, শ্রীমৎ পন্থক মহাস্থবির।

শ্রীমৎ পন্থক মহাস্থবির দেশনায় বলেন, দান করতে গেলে মানুষের মন উদার হতে হয়। মন বড় হলে এই ধরনের বড় দান করা যায়। পঞ্চশীল, অষ্টশীল যারা পালন করে তাদের জীবনে কোনদিন দুর্গতি আসেনা ৷ তারা জন্ম জন্মান্তরে উচ্চ কুলে জন্ম নিবে।

এসময় তিনি সকল ভিক্ষু এবং দায়ক দায়িকাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। এই দানোত্তম কঠিন চীবর দানে অংশগ্রহণ করে সাফল্য মন্ডিত করার জন্য।

শ্রীমৎ ইন্দ্র গুপ্ত মহাস্থবির দেশনায় বলেন, কানে,মনে জ্ঞানে ধর্ম দেশনা শ্রবণ করতে হবে। জ্ঞান দিয়ে ধর্মকে উপলব্ধি করতে হবে। কঠিন চীবর দানের ফলটা শতবর্ষে আমরা অন্যান্য কোনো দান করলে যে ফলটা হবে, সেটা এটার ষোল ভাগের একভাগও হবে না। মিথ্যাদৃষ্টি থেকে সর্বদা
দূরে থাকতে হবে তবেই বনভান্তের শাসন চির স্থায়ী থাকবে।

দিন ব্যাপী নানা অনুষ্ঠান শেষে সন্ধ্যার সময় আকাশ প্রদীপ উত্তোলনের মধ্য দিয়ে কঠিন চীবর দানের অনুষ্ঠান শেষ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © দিগন্তের বার্তা ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD