1. admin@digonterbarta24.com : admin :
সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:৪১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রোগ্রামের শিক্ষির্থীদের করোনা প্রদান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেলে আগুন, নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস বাগেরহাট প্রেসক্লাবের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ মীরসরাইয়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা, গ্রেপ্তার ২ হাতিয়ায় ২ ইউপিতে চেয়ারম্যান সহ সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত  নড়াইলে অস্ত্র মামলায় ১জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড বাগেরহাটে মোসাফির ব্লাড ডোনারস ক্লাবের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠিত কোভিট-১৯ এর জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে বান্দরবানে মোবাইলকোর্ট পরিচালনা শেরপুরে বস্তাবন্দি অজ্ঞাত নারীর মরাদেহ উদ্ধার মৌলভীবাজারে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা, আজ থেকে কঠোর হচ্ছে প্রশাসন

৪০ বছর পর মা-বাবার কাছে ফিরলো মিনতি

দিগন্তের বার্তা ২৪ ডেস্ক
  • সময় : বুধবার, ২০ অক্টোবর, ২০২১
  • ৪৮ বার পঠিত

অলিউল্লাহ,গুরুদাসপুর প্রতিনিধিঃ নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার মশিন্দা ইউনিয়নের রানীগ্রাম এলাকার বাছের আলীর হারিয়ে যাওয়া ৬ বছরের শিশু মিনতি ৪০ বছর পর ফিরে পেলেন তার পরিবারকে।

জানা যায়, মিনতিরা চার ভাই-বোন। তার মধ্যে মিনতি ছোট। ৬ বছর বয়সে চাচাতো বোন ও দুলাভাইয়ের সাথে ময়মনসিংহে বেড়াতে যায়। দুলাভাইয়ের সাথে ঘুরতে ঘুরতে হঠাৎ স্টেশনে হারিয়ে যায় মিনতি।

অনেক খোঁজখবর করে না পেয়ে বোন ও দুলাভাই হতাশ হয়ে ফিরে আসেন।
মিনতি জানান, আমাকে কান্না অবস্থায় পেয়ে মসলেম উদ্দিন নামের এক ব্যক্তি তার বাসায় নিয়ে যান। তার বাড়িতেই মেয়ের মতো বড় হতে থাকি। প্রাপ্ত বয়স্ক হলে গাজীপুরের শ্রীপুর এলাকার ব্যবসায়ী বুরহান উদ্দিনের সাথে তার বিয়ে হয়। বর্তমানে তিনি চার কন্যার জননী। তিন মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন। তার বড় মেয়ে জামাই ঢাকায় থাকে। তাদের সাথে পরিচয় হয় গুরুদাসপুর উপজেলার চাপিলা ইউনিয়নের মকিমপুর গ্রামের উদ্যোক্তা শাহরুখ নয়নের সাথে। মিনতির মেয়ে জামাইয়ের তথ্য অনুযায়ী নয়নের প্রচেষ্টায় ফিরে পেয়েছেন তার হারানো পরিবারকে। নিজের মা-বাবা আত্মীয় স্বজনদের কাছে পেয়ে অনেক আনন্দিত মিনতি।

শাহরুখ নয়ন জানান, পড়াশোনা অবস্থায় পরিচয় হয় মিনতির মেয়ে জামাইয়ের সাথে। তার কাছেই শোনেন মিনতির জীবনের গল্প। মিনতির সাথে কথা বলে তিনি জানতে পারেন রাজশাহী জেলার কাছিকাটা গ্রামে তার বাপ দাদার বাড়ি। সেই সূত্র ধরেই নয়ন ওই এলাকায় বার বার যান এবং লিফলেট বিতরন করেন। এভাবে খুঁজতে খুঁজতে রানীগ্রাম এলাকা থেকে ফোন আসে তার কাছে। মিনতি মোবাইল ফোনে তাদের সাথে কথা বলে এবং ছোট বেলার কিছু চিহ্ন ও স্মৃতি রয়েছে সেই সূত্র ধরেই আপন ঠিকানার সন্ধান পান। রোববার রাত আটটার দিকে তার পরিবারকে ফিরে পান। নিজের আপন ঠিকানা মা-বাবা ও স্বজনদের কাছে পেয়ে আবেগ আপ্লুত হন মিনতি ও তার পরিবারের লোকজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © দিগন্তের বার্তা ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD