1. admin@digonterbarta24.com : admin :
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ১০:০৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ডিসি মিজানুর রহমানে সহায়তায় ইউএনও মো জুয়েল রানার হাত ধরেই বরকলে প্রথম গার্লস স্কুল স্থাপন নানিয়ারচরে জলবায়ু পরিবর্তনে স্থিতিস্থাপকতা সৃষ্টিতে আলোচনা সভা রাঙ্গামাটিতে ইউপি চেয়ারম্যান শপথ গ্রহণের পর গ্রেফতার তাড়াশের নাদোসৈয়দপুর মুসলিমপাড়ায় হাতেম আলী বাড়ীতে তিনটি গরু চুরি কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া বন থেকে মানবদেহের কঙ্কাল উদ্ধার আমরা খারাপ কাজের মাধ্যমে নয় ভালো কাজ করে সংবাদের যোগান দিতে চাইঃ আইজিপি করোনা ও ওমিক্রন থেকে রক্ষা পেতে সবাইকে ভ্যাকসিনের আওতায় আসতে হবেঃ সিভিল সার্জন বান্দরবানে পৃথক ২টি মাদক মামলার জব্দকৃত আলামত ধ্বংস উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রোগ্রামের শিক্ষির্থীদের করোনা প্রদান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেলে আগুন, নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস

ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার সফল সংগ্রামী নারী উদ্যোক্তা “সারিয়া নাসির রাকা”

দিগন্তের বার্তা ২৪ ডেস্ক
  • সময় : মঙ্গলবার, ১৩ জুলাই, ২০২১
  • ৪৪৯ বার পঠিত

দিগন্তেরবার্তা২৪,ডেস্কঃ ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার মেয়ে “সারিয়া নাসির রাকা”।যিনি একজন সফল উদ্যোক্তা, সফল ব্যবসায়ী। তিনি ১৯৯৯ সাল থেকে চালিয়ে যান জীবন সংগ্রামের একটি অংশ অনলাইন ব্যবসা।তবে থেমে থাকেননি তিনি। দুর্গম পথ এবং ব্যার্থতার গ্লানি উপেক্ষা করে আজ সাফল্যর দ্বারপ্রান্তে”সারিয়া নাসির রাকা”।হাটি হাটি পা পা করে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে সাথে নিয়ে তিনি হয়ে উঠেন ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার সফল নারী উদ্যোক্তা।

”উদ্যোক্তা হওয়ার গল্প নিয়ে টেকজুমের এবারের আয়োজন।ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার মেয়ে “সারিয়া নাসির রাকা” এর উদ্যোক্তা হয়ে ওঠা নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছেন দিগন্তের বার্তা ২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার। পাঠকদের উদ্দেশ্যে সাক্ষাৎকারটি তুলে ধরা হলো-

আপনার সম্পর্কে যদি কিছু বলতেন?
আসসালামু আলাইকুম আমার নাম সারিয়া নাসির রাকা।একজন প্রফেশনাল মেকাপ আর্টিস্ট এবং হার ফ্যাশন বিউটি পার্লার এর প্রতিষ্ঠাতা সাথে একজন মা এবং সহধর্মিণী। আমি গুলশানে থাকি আর হার ফ্যাশন বিউটি পার্লারটি ব্রাহ্মনবাড়িয়া তে।
আমার পেইজ- Her fashion, Brahmanbaria
আমার ইউটিউব –shariya by her fashion।

উদ্যোক্তা আগ্রহ কিভাবে তৈরি হলো?
আমার সব সময় ইচ্ছাছিল আত্ম নির্ভরশীল হয়ে উঠব।ছোট বেলা থেকে সাজগোজ এবং পোষাকের ডিজাইন করার প্রতি আগ্রহ ছিল।এই ব্যাপারে আমার মা এবং আমার স্বামী  আমাকে অনেক সাহায্য করেছে।ওনাদের অনেক উপদেশ আমি আমার নিজেকে তৈরি করার ক্ষেত্র হিসাবে কাজে লাগিয়েছি। আমার বিয়ের পর আমার স্বামী আমাকে অনেক দেশ বিদেশ ঘুরিয়েছে এবং সেখান থেকে আমি অনেক কাজ শিখেছি।এরপর আমার ১ম ছেলে হবার পর ও আমি আমার কাজ চালিয়ে গিয়েছি ঘরে বসে।ছেলের বয়স ১০ বছর পর যখন আমার মেয়ে হয় তখন আমি প্রায় অনেক দিন কাজ বন্ধ রাখি।আর মেকআপ এর A-Z সব জানি তাহলে এটাকে নিয়েই আবার নতুন করে শুরু করলাম।যেহেতু,আমি কাজ ছাড়া থাকতে পারি না তাই আমার মা এর উদ্যেগে আর আমার ফ্যামিলির সহযোগিতায় প্রফেশনটাই বেছে নিয়েছি।তখন থেকে আজ অব্দি থেমে থাকি নাই।ওটাই এখন আমার বড় প্রফেশন হয়ে গিয়েছে।এখন আমি মেকআপ করি এবং অন্যকে শিখাই।হার ফ্যাশন  ১৯৯৯ সাল থেকে এখন অব্দি আমার স্বপ্ন।

আপনি এই অনলাইন বিজনেসে কাকে আইডল হিসেবে দেখছেন?
আইডল অনেক বড় একটি ব্যাপার। আমি যখন ১৯৯৯ সালে হার ফ্যাশন  গড়ে তুলি তখন আমার চিন্তা ভাবনাই আমার আইডল ছিল। আর তখনতো অনলাইন বিজনেস এর ব্যাপারে কোন ধারণাই ছিল না।আমার পাশে পেয়ছিলাম আমার স্বামী আমার মা সর্বোপরি আমার পরিবার।তাদের নিয়ে শুরু করেছিলাম আর যদি বলি সত্যিকারের আইডল এর কথা তাহলে বলবো দেশের সব বিউটিশিয়ানরা। যেমন-জেরিনা আজগর,গীতি বিল্লাহ, কানিজ আলমাস।সর্বোপরি যার কথা না বললেই নয় উনি হলো আমার মা।আমার মা আমাকে বুঝিয়েছেন-“আমি মুল্যহীন না”,আমি অনেক মূল্যবান।আমার মা মেন্টালি স্ট্রং আলহামদুলিল্লাহ। আমার ফিউচার আমার মায়ের মত স্ট্রং দেখতে চাই।এক কথায় বলতে গেলে আমার মা আমার আইডল।

কতটুকু সফলতা লাভ করেছেন বলে মনে করেন?

আলহামদুলিল্লাহ। অবশ্যই নিজেকে একজন সফল নারী উদ্যেক্তা হিসেবে মনে করি।হার ফ্যাশন বিউটি পার্লার দ্বারা এতগুলো মানুষ আমাকে চিনতে পেরেছে এগুলো  তো আমার জন্য অনেক বড় সফলতা আর এখন আমার ফুল ফ্যামিলি আমাকে সাপোর্ট করে যাচ্ছে।আমার কাজ এর জন্য তো আমাকে অবশ্যই সফল বলা চলে।

আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি?
ভবিষ্যতে ইচ্ছা আছে আমার হার ফ্যাশন মেকআপ স্টুডিও হিসাবে আরো বড় করা।স্টুডেন্টদের মেক আপ শিখাবো।বিভিন্ন সেবা মূলক সামাজিক কর্মকাণ্ডের  মাধ্যমে নারীদেরকে সফল ব্যাবসায়ী হতে উৎসাহ প্রদান করবো।

আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা বলুন?
আমি ভিকারুননিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ থেকে আমার  এস এস সি এবং এইচ এস সি কমপ্লিট করি।বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আমি আমার গ্রাজুয়েশন কমপ্লিট  করেছি।আমি দেশে এবং বিদেশে থেকে মেকআপ  হেয়ার এবং স্কিন এর উপর ট্রেনিং  নিয়েছি সার্টিফাইড  মেক আপ আর্টিস্ট।

আপনার চ্যালেঞ্জ গুলো কিভাবে মোকাবেলা করেছেন?
এখন আসলে অনলাইন ব্যবসা এবং মেকআপ এর জগতে অনেক কম্পিটিশান। তাই প্রতিনিয়ত আমি নিজের মেক আপ স্কিল আপডেট করে যাচ্ছি। আমি যেহেতু ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে আমার হারফ্যাশন বিউটি পার্লারটিঅনেক বড় চ্যালেঞ্জ যে ঢাকার আপুরা যেসব সুযোগ সুবিধা পায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আপুদেরকে ও যেনো আমি সেই সুযোগটি করে দিতে যাচ্ছি হার ফ্যাশন বিউটি পার্লারটির মাধ্যমে আমাদের আপুরা যেনো সন্তষ্ট প্রকাশ করতে পারে।

আপনার নতুন প্রোডাক্ট গুলো কি কি?
বর্তমানে করনা কালীন সময়ে আমাদের দেশে সব ব্যবসায়ীদের  অবস্থা খারাপ যাচ্ছে। আমাদের যত ক্লাইন্ট আছে তাদের আমি নিয়মিত খোজ খবর  রাখছি এবং বাড়িতে বসেই স্কিন এবং হেয়ার মেইনটেইন করে সে ব্যাপারে সাহায্য করে যাচ্ছি।আল্লাহ যেনো আমাদের সবাইকে এই সিচুয়েশন থেকে তাড়াতাড়ি পরিত্রাণ দেন এবং সকলেই যেনো আমরা সুস্থ থাকি।

বর্তমানে কভিড১৯ এ ই-কমার্স?
কোভিড ১৯ যদিও কিছু কিছু ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা কিন্তু তারপরও  সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে চেষ্টা করছি যাতে ব্যবসাটাকে আরো দ্রুত সম্প্রসারণ করা যায় কিনা এবং যেহেতু উদ্যোক্তার একটা বড় গুন  হচ্ছে যেকোনো পরিস্থিতিতে কে কাজে লাগানো ঠিক আমিও সেটাই করছি যেহেতু এখন মহামারির জন্য সবাই বের হচ্ছে না এবং শপিং মল গুলো থেকেও বিরত থাকছে তাই  সুযোগকে কাজে লাগিয়ে তাদের প্রয়োজনীয় নিত্য নতুন জামা আমার জামা কাপড় থেকে শুরু করে শাড়ি, কসমেটিক্স সবকিছু আমি আমার পেইজেই রাখছি । যাতে স্বাধ্যর মধ্যে একপেইজ থেকেই  নিতে পারে।

পরিশেষে স্রোতাদের উদ্দ্যেশ্যে কিছু বলুন?
নতুন উদ্যেক্তাদের বলবো,দুনিয়াতে কোন কিছুই অসম্ভব নয়।আল্লাহ চাইলে সব কিছু সম্ভব। মনের শক্তি এবং নারীকে কখনোই অসহায় ভাবা টা ভুল।ঘরে বসেই নারীরা অনেক কিছু করে যাচ্ছে যেকোন জিনিস করার আগে পরিবারের সহযোগিতা খুবই প্রয়োজন তাহলেই নিজে কে সফল উদ্যেক্তা হিসেবে ভবিষ্যতে দেখতে পারবেন।নিজের বিজনেস এ সৎ মনোভাব এবং  সাহস রাখতে হবে।এটাই আমার মা আমার স্বামীর উপদেশ আমার প্রতি। আর বাকি টা আল্লাহর ইচ্ছা।ভালো থাকবেন,সুস্থ থাকবেন সুন্দর থাকবেন,আল্লাহ হাফেজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © দিগন্তের বার্তা ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD