1. admin@digonterbarta24.com : admin :
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৭:০১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
পূজা মন্ডবে পরিদর্শনে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার মিজানুর রহমান জনি দেশব্যাপি সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে কড়া হুশিয়ারি জানিয়ে পাহাড়তলী থানা ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল গুইমারায় চার দিন ধরে নিখোঁজ ভাঙ্গারী ব্যবসায়ী শানু মিয়া বিশ্ব খাদ্য দিবস ২০২১ উপলক্ষে বাঘাইছড়িতে র‍্যালী ও আলোচনা সভা উদযাপন চট্টগ্রামে হরতাল প্রত্যাহার নিউ ইয়র্কে এইচআরপিবি’র মতবিনিময় সভা, প্রবাসীদের সম্পত্তি রক্ষায় ট্রাইব্যুনাল গঠনের দাবি মানিকছড়িতে যুবলীগের কর্মী সমাবেশ অনুষ্ঠিত চট্টগ্রামে মণ্ডপে হামলা, হরতালের ডাক আড়িয়াব শ্বারদীয় দুর্গা পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেন মেয়র হাছিনা গাজী বাংলাদেশ পুলিশ ক্রিকেট ক্লাবের নতুন কার্যনির্বাহী কমিটির বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত

মধুপুরে বন কর্মকর্তার আক্রোশের শিকার করাতকল মালিক

দিগন্তের বার্তা ২৪ ডেস্ক
  • সময় : মঙ্গলবার, ৬ জুলাই, ২০২১
  • ৬০ বার পঠিত

সাদিকা হাসান,মধুপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধি :টাঙ্গাইলের মধুপুরে অনৈতিক সুবিধা না পাওয়ার কারনে এক বন কর্মকর্তার আক্রোশে মিথ্যা মামলার শিকার হয়েছেন স্থানীয় এক করাতকলের মালিক। গত ৩০ এপ্রিল অন্যস্থান থেকে গজারী কাঠ উদ্ধার করে ঘটনার ৬ দিন পর তার নামে মামলা দায়ের করেন সে বন কর্মকর্তা। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে স্থানীয়দের মাঝে।

জানা যায়,গত ৩০ জুন মধুপুর বনাঞ্চলের রসুলপুর জাতীয় উদ্যানের সহকারী বন সংরক্ষক জামাল উদ্দিন মধুপুরের পিরোজপুর নাগরখালী খাল থেকে কিছু গজারী কাটা গাছ উদ্ধার করেন। পরে সে এলাকা থেকে অনেকদুরে স্থানীয় সাইফা করাতকলের মালিক শহিদুলের অনুপস্থিতিতে তার কলের চাকা খুলে নিয়ে আসেন জামাল।

এ ঘটনায় রেঞ্জ কর্মকর্তা আমিনুরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অনৈতিক সুবিধা দাবি করেন শহিদুলের কাছে। শহিদুল উৎকোচ দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে ঘটনার ৬ দিন পর মধুপুর থানায় শহিদুলের নামে হয়রানীমূলক মামলা করেন এই বন কর্মকর্তা।

শহিদুলের অভিযোগ, তার পাশ্ববর্তি মোস্তফা করাতকলের মালিক মোস্তফা মিয়া বনের কাঠ এনে অবাধে চিরাই করতেন। তার কাছ থেকে অনৈতিক সুবিধা পেতো বন বিভাগের অসাধু কিছু কর্মকর্তা। গত কিছুদিন পূর্বে মোস্তফার এই অবৈধ ব্যবসার তথ্য এলাকাবাসী বনবিভাগের কর্মকর্তার অবহিত করলে তার করাতকলে অভিযান করে বনবিভাগ। পরে তার নামে পৃথক দুটি মামলাও দায়ের করা হয়। এই ঘটনায় মোস্তফা শহিদুলকে ফাঁসাতে বিভিন্ন সময় চক্রান্ত করে আসছিল। শহিদুলের নামে এই হয়রানীমূলক মামলা সেই ষড়যন্ত্রের অন্যতম অংশ বলে দাবি করেন তিনি।

এ ব্যাপারে মধুপুর বনাঞ্চলের রসুলপুর জাতীয় উদ্যানের সহকারী বন সংরক্ষক জামাল উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, সকল নিয়ম মেনেই শহিদুলের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। যদিও তার করাতকলে গজারী কাঠ পাওয়া যায়নি। তারপরও তার মিলের কাছাকাছি হওয়াতে আমরা তাকেই সন্দেহ করছি। আর আমি শহিদুলের কাছে কোন ধরনের ঘুষ দাবি করিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © দিগন্তের বার্তা ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD