1. admin@digonterbarta24.com : admin :
শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১০:৫৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

খুলশীর হাবিবলেনের ভিআইপি পতিতালয়ের মুল হোতা আলম গ্রেপ্তার

দিগন্তের বার্তা ২৪ ডেস্ক
  • সময় : সোমবার, ৫ জুলাই, ২০২১
  • ৯৭ বার পঠিত

মোঃ জাহেদুল ইসলামঃ চট্টগ্রাম নগরীর খুলশী এলাকার কথিত ভিআইপি পতিতালয় আলম গেস্ট হাউজের পরিচালক, মাদক ব্যাবসায়ী আলমকে পটিয়া থেকে আটক করেছে নগর গোয়েন্দার (উত্তর) পুলিশ।তার বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর সহ বিভিন্ন আইনে তার প্রায় ১০টি মামলা চলমান রয়েছে।

এর আগেও বেশ কয়েকবার অভিযান চালিয়েছিল প্রশাসন কিন্তু অভিযান পরিচালনা করেও বন্ধ করা যায়নি আলমের সেই অবৈধ কার্যকলাপ।

গত ২১ মার্চ ২০২১ তারিখে উক্ত গেস্ট হাউজের এক কর্মীকে ৫০ পিস ইয়াবাসহ আটক করে খুলশীথানা পুলিশ। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ওই গেস্ট হাউজের ভেতরে থাকতো পতিতা নারী, চলতো ইয়াবা ব্যবসা, ইয়াবা সেবন, মাদক বিকিকিনিসহ বিভিন্ন বেআইনি কর্মকাণ্ড। ভারতীয় হাই কমিশনের ভিসা জমাদান কেন্দ্র থেকে মাত্র ১০০ গজের ব্যবধানে এমন অনৈতিক কর্মকাণ্ডের কথা শুনে খোদ সিএমপির অনেক পুলিশ কর্মকর্তারাও বিস্মিত হয়েছেন।

বিশেষ নিরাপত্তার জন্য প্রথমে লোহার দরজা তারপর কলাপসিবল গেট দেওয়া হয়েছে। বাইরে থেকে কিছু বোঝা না যাওয়ার জন্য অন্ধকার করে রাখা হয়েছে নিচতলা। দুর থেকে বোঝার উপায় নেই ভেতরে কি হচ্ছে? গেটটি সবসময় তালা দেওয়া থাকে। চাবি হাতে আশপাশে দায়িত্বে থাকে একজন। গেট পেরিয়ে ভেতরে প্রবেশ করতেই দেখা যায় ভিন্ন এক পরিবেশ। নিচতলার গেটে যতটা নিরবতা ভেতরে ততটা জমজমাট।

জানা যায়, খুলশীর হাবিব লেনে অবস্থিত ওই গেস্ট হাউজ ভবনটির মালিক জয়নাল আবেদিনের স্ত্রী মমতাজ বেগম। মমতাজ বেগম আলমকে ভাড়া দেয় যার মেয়াদ ২০৩১ সালের ১ মার্চ পর্যন্ত।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্র্যাট তাহমিলুর রহমান এক বিশেষ অভিযান চালায়,অভিযানটি পরিচালিত হয় ২০১৭সালের ১৮জানুয়ারি অবৈধ কাজে নিয়োজিত ১১ তরুণী, ১৫ খদ্দেরকে গ্রেফতার করে। এছাড়া ১ লাখ ৯শ ৯০ টাকা উদ্ধার করা হয়।সে সময় গেস্ট হাউজের সাথে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগ পাওয়ায় সিএমপির সাবেক ওসি, মইনুল ইসলাম ভূইয়াকে বরখাস্ত করা হয়।

নগর পুলিশের বিশেষ নজরদারিকে ফাঁকি দিয়ে খুলশীর ওই স্পটে দিনরাত চলতো ইয়াবা ব্যবসা, নিরাপদ ইয়াবা সেবন, মাদক বিকিকিনি, ম্যাসাজ সেন্টারের নামের নানা অনৈতিক কর্মকাণ্ড। পরপর অভিযানেও তাদের কর্মকাণ্ড বন্ধ হয়না।

গ্রেপ্তার হলেও অপরাধীদের থানা থেকে ছাড়িয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রেও তদবির করার অভিযোগও আছে এই চক্রের বিরুদ্ধে।আদালতে প্রেরন হলে আইনের ফাকে বেরিয়ে এসে আবারো চালায় কার্যক্রম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © দিগন্তের বার্তা ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD