1. admin@digonterbarta24.com : admin :
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৭:০৪ অপরাহ্ন

টাংগাইলের সফল নারী উদ্দ্যোক্তা “নুসরাত জাহান পিউলী”

দিগন্তের বার্তা ২৪ ডেস্ক
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১
  • ২৬০ বার পঠিত

দিগন্তেরবার্তা২৪,ডেস্কঃ টাংগাইলের মেয়ে “নুসরাত জাহান পিউলী“।যিনি একজন সফল উদ্যোক্তা, সফল ব্যবসায়ী। তিনি ২০১৭ সাল থেকে চালিয়ে যান জীবন সংগ্রামের একটি অংশ অনলাইন ব্যবসা।তবে থেমে থাকেননি তিনি। দুর্গম পথ এবং ব্যার্থতার গ্লানি উপেক্ষা করে আজ সাফল্যর দ্বারপ্রান্তে ” নুসরাত জাহান পিউলী “।হাটি হাটি পা পা করে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে সাথে নিয়ে তিনি হয়ে উঠেন টাংগাইলের সফল নারী উদ্যোক্তা।

”উদ্যোক্তা হওয়ার গল্প নিয়ে টেকজুমের এবারের আয়োজন।টাংগাইলের মেয়ে ” নুসরাত জাহান পিউলী ” এর উদ্যোক্তা হয়ে ওঠা নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছেন দিগন্তের বার্তা ২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার। পাঠকদের উদ্দেশ্যে সাক্ষাৎকারটি তুলে ধরা হলো-

আপনার সম্পর্কে যদি কিছু বলতেন?
আসসালামু আলাইকুম।আমি নুসরাত জাহান পিউলী। মুসলিম ঘরে জন্মগ্রহণ করেছি আলহামদুলিল্লাহ্।জন্মের পর থেকেই টাংগাইলের মধুপুরে বেড়ে উঠা।পড়াশোনার শুরু ছিল তখনকার সময়ে মধুপুরের একমাত্র কিন্ডারগার্টেন স্কুল মুকুল একাডেমি তে। তারপর পঞ্চম শ্রেণীর বৃত্তির জন্য চলে আসি প্রাইমারি তে।প্রাথমিক পড়াশুনা শেষে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে মাধ্যমিক শেষ করি মধুপুর রানী ভবানী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় হতে। উচ্চ মাধ্যমিক শেষ করেছি মধুপুর কলেজ হতে।
আলহামদুলিল্লাহ্।

উদ্যোক্তা আগ্রহ কিভাবে তৈরি হলো?
ব্যবসা নিয়ে কখনো বিন্দুমাত্র চিন্তা আসি নি।যেহেতু মাধ্যমিক শেষ করেছি বিজ্ঞান বিভাগ থেকে,বরাবর ই  মা বাবার ইচ্ছা ছিল অন্য রকম।আমার ইচ্ছে ছিল আর্মি তে জয়েন করার।স্বপ্ন তো কতোই ছিল,কিন্তু উচ্চ মাধ্যমিক ফাইনাল পরীক্ষা হওয়ার আগেই বিয়ে হয়ে গেল।বিয়ে হবার পর সব কিছু পাল্টে গেল,সংসার সন্তান নিয়ে ব্যস্ত হয়ে গেলাম।ঠিক তখন স্বপ্ন গুলো খাতার অন্য পাতায় বদলে ফেললাম।বিয়ের পাঁচ বছর পর ছেলেরা কিছু বড় হবার পর থেকেই ভাবতে থাকলাম,কিছু একটা করবো যাতে করে আমার একটা পরিচয় তৈরি হয়।সেই চিন্তা থেকেই শুরু।কেউ ছিল না পাশে কেউ না।পিঠাপিঠি দুই পুত্রের জন্য অন্য কিছু তখন আর চিন্তা হচ্ছিল না। ঠিক তখন থেকেই ব্যবসা নিয়ে হঠাত চিন্তার শুরু।

আপনি এই অনলাইন বিজনেসে কাকে আইডল হিসেবে দেখছেন?

আইডল যদি বলেন,তাহলে শুরুতে সেইরকম কেউ ই ছিল না আইডল হিসেবে।কারন আমি যখন চিন্তা করি কিছু একটা করবো,তখন আমি জানতাম ই না ঠিক কি করব।শুধু প্রশ্ন জাগত,কি করবে পারব আমি?মোবাইলের এত কিছু অপশন সম্পর্কে যখন অবগত ছিলাম না।তবে,হঠাত একদিন একটা গ্রুপে এড হলাম,তো ২০১৭ এর নভেম্বর এ আমি একজন আপুর সাথে সংযুক্ত হলাম, আপু কে ৯০টা পে করে আপুর সাথে এড হলাম একটা গ্রুপে।তাদের প্রডাক্ট সেল করলে প্রফিট এর কিছু অংশ আমরা পাবো।তো শুরু করলাম।আলহামদুলিল্লাহ্ ভালোই লাগছিল।এইভাবে ই যাত্রা শুরু কিন্তু ২০১৯ এ এসে নুসরাত আক্তার লোপা(owner of HUR nusrat) দিদিমনি হয়ে ছিল আমার আইডল,উনাকে যত দেখতাম মুগ্ধ হতাম।এখনো আপুকেই আইডল হিসেবে দেখি।আলহামদুলিল্লাহ্।স্বপ্ন দেখি অনেক।

কতটুকু সফলতা লাভ করেছেন বলে মনে করেন?

সফলতা অবশ্যই অনেক বেশি লাভ করেছি বলে আমি মনে করি। কারন ঘরে বসে ৬ বছর ধরে বিজনেস রান করে যাচ্ছি,উপার্জন করে যাচ্ছি, এত গুলো মানুষ আমাকে চিনতে পেরেছে একজন ব্যাবসায়ী হিসেবে, এত গুলা মানুষ এর ভালোবাসা পাচ্ছি। এগুলো তো আমার জন্য অনেক বড় সফলতা আলহামদুলিল্লাহ আর এখন আমার ফুল ফ্যামিলি আমাকে সাপোর্ট করে যাচ্ছে আমার কাজ এর জন্য তো আমাকে অবশ্যই সফল বলা চলে।

আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি?
আমার ভবিষ্যত পরিকল্পনা হচ্ছে আমি নিজেকে একজন সফল উদ্যোক্তা হিসেবে দেখতে চাই।বলে রাখা ভালো অনলাইনে আমার দুই টা পেইজ।২০১৭ থেকে আমি পোশাক নিয়ে কাজ করছি, সাপোর্ট না থাকার কারনে এখনো পিছনেই পরে আছি,তবে এখন সবার সর্বোচ্চ সহযোগিতা পাচ্ছি তাই বর্তমান কে সুন্দর করতে চাচ্ছি ইনশাল্লাহ্।পারিবারিক ভাবে সহযোগিতা না পেয়ে আমি একটা নতুন পেইজ ক্রিয়েট করি ২০১৯ এ।যেটা ছিল আচার নিয়ে,, সব ধরনের হোমমেইড আচার এবং হোমমেইড খাবার নিয়ে। তো এই পেইজের যাত্রা শুরু হয় আমার মা এবং নুসরাত আকতার লোপা আপুর হাত ধরে আলহামদুলিল্লাহ্।এখন আমার স্বপ্ন আমার আচার নিয়ে,, আমার সাথে তৈরি ঘরোয়া সব খাবার নিয়ে।এই পেইজ টা কে খুব দ্রুত আগাতে পেরেছি,, যথেষ্ট সাড়া পেয়েছি আলহাদুললিল্লাহ্।এখন স্বপ্ন একদিন বড় কোন রেস্টুরেন্ট হবে আমার,, যেখানে থাকবে সব ধরনের দেশী খাবার ইনশাল্লাহ্।আল্লাহ্ চাইলে একদিন লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারব ইনশাল্লাহ্।

আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা যদি বলতেন?
আমি টাংগাইল জেলার মধুপুর থানার  থেকে নিম্ন মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক সম্পূর্ণ করেছি আলহামদুলিল্লাহ্।আমার মাধ্যমিক শেষ হয়েছে মধুপুর রানী ভবানী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে।আর উচ্চ মাধ্যমিক সম্পূর্ণ হয়েছে মধুপুর কলেজ থেকে।তারপর বিভিন্ন কারনে আগাতে পারি নি বলেই উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলছি একটু একটু করে ইনশাল্লাহ্।

আপনার চ্যালেঞ্জ গুলো কিভাবে মোকাবেলা করেছেন?

প্রতিনিয়ত অনেক বাধার সম্মুখীন হয়েছি কিন্তু হাল ছাড়ি নি থেমে যাই নি।এতো বেশি বাজে সময়ের সম্মুখীন হয়েছি যে থেকে স্বয়ং আল্লাহ্ আমাকে সেইভ করেছেন আলহামদুলিল্লাহ্।পরিশ্রম দৃঢ় মনোবল আজকে এখানে আসতে সাহায্য করেছে আলহামদুলিল্লাহ্।কখনো ভেঙে পরি নি,কখনো নিজে কে হেরে যেতে দেই নি।ইনশাল্লাহ্ আরো অনেক পথ বাকি।বেশ কিছুদিন যাবত আমার চলাফেরায় আমি নিজেই পরিবর্তন নিয়ে এসেছি আলহামদুলিল্লাহ্,নিজেকে ইসলামিক ভাবে আগলে রেখে যতটা আগাবো যায় আগাবো ইনশাল্লাহ্। সেদিক থেকে আমি আমার প্রথম পেইজ যেটার যাত্রা পোশাক দিয়ে শুরু, ইচ্ছা আছে  হিজাব,নিকাব,বোরকা নিয়ে কাজ করার ইনশাল্লাহ্।সাথে কাতান শাড়ি নিয়ে ও কাজ করতে চাই ইনশাল্লাহ্।ফুড পেইজ নিয়ে যদি বলি তবে আচার টা কে বেশি ফোকাস করতে টাই ইনশাল্লাহ্।

বর্তমানে কভিড১৯ এ ই-কমার্স?

কভিড১৯ এ আমার দুইটা পেইজ ই প্রায় অফ ছিল বিভিন্ন কারনে।তবে ২০২০ এর জুলাই থেকে  আচা, এবং ঘরোয়া খাবার নিয়ে খুব ভালো সাড়া পেয়েছি।যা এখন পর্যন্ত পাচ্ছি আলহামদুলিল্লাহ্।যেহেতু এই করোনাকালীন সময়ে লকডাউনের কারনে মানুষ শপিং মল,রেস্টুরেন্ট থেকে বিরত থেকেছে সেহেতু সেই প্রেসার টা অনলাইনে এসে উদ্যোক্তাদের মাঝে বেশ ভালো সাড়া জাগিয়েছে। করোনাকালীন সময়ের শুরু থেকে মানুষ প্রায় ভালো ভাবেই অনলাইন পেইজ গুলোর উপর নির্ভরশীল হয়ে পরেছেন।আশা রাখছি তাদের এই বিশ্বাসের জায়গা সব সময় ধরে রাখতে পারব ইনশাল্লাহ্।

পরিশেষে স্রোতাদের উদ্দ্যেশ্যে কিছু বলুন?
মেধা,পরিশ্রম,ধৈর্য্য আর সততা থাকলে কোন কিছুই অসম্ভব নয়।আল্লাহ্’র উপর বিশ্বাস রেখে পরিশ্রম করে যেতে হবে ধৈর্য্যের সাথে। সফলতা ইনশাল্লাহ্ আসবেই। বাধা বিপত্তি তো আসবেই,কিন্তু ভেঙে পরা যাবে না। বাবা,স্বামী,চাচা,দাদা,নানা সবার পরিচয়ের সাথে নিজের ও একটা পরিচয় থাকা খুব প্রয়োজন।আর সেটা হতে সবে সাবলীল।আর অবশ্যই প্রয়োজন একে অপরকে সহযোগিতা করা।প্রতিটা কাজ ই সম্মানের, প্রতিটা কাজ ই তার ন্যায্য সম্মান টুকু আশা করে।আসুন আমরা সবাই সবাইকেসহযোগীতা করে এগিয়ে যাই।ইনশাল্লাহ্ সব কিছু হবে সুন্দর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © দিগন্তের বার্তা ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD