1. admin@digonterbarta24.com : admin :
রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৫:৫৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ছাত্রকে বিয়ে করা সেই কলেজ শিক্ষিকার আত্মহত্যা চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু’র খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে শাস্থির দাবিতে সমাবেশ রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে GST গুচ্ছভুক্ত বি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের নিকট থেকে সংবর্ধনা বিরল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে : রশিদুল হক কুলাউড়ায় পুলিশের অভিযানে ভারতীয় নাসির বিড়িসহ এক কারবারি গ্রেপ্তার লংলা ডিগ্রি কলেজের সহকারী অধ্যাপকের উপর হামলাকারী পুলিশের হাতে আটক সেনবাগে বিভিন্ন মামলার আসামী গ্রেফতার সেনবাগ পৌরসভার ১ম মেয়রের মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল ঘাসফুল আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় বক্তারা উত্তর কাট্টলীতে স্থাপিত হল ‘সেলুন পাঠাগার বিশ্বজুড়ে’

অনলাইন বিজনেসের মাধ্যমে নারীরা স্বাবলম্বী হচ্ছে – তাছপিয়া নিহা

দিগন্তের বার্তা ২৪ ডেস্ক
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১
  • ২৯২ বার পঠিত

দিগন্তেরবার্তা২৪,ডেস্কঃ ঢাকার মেয়ে “তাছপিয়া নিহা“।যিনি একজন সফল উদ্যোক্তা, সফল ব্যবসায়ী। তিনি ২০১৭ সাল থেকে চালিয়ে যান জীবন সংগ্রামের একটি অংশ অনলাইন ব্যবসা।তবে থেমে থাকেননি তিনি। দুর্গম পথ এবং ব্যার্থতার গ্লানি উপেক্ষা করে আজ সাফল্যর দ্বারপ্রান্তে ” তাছপিয়া নিহা “।হাটি হাটি পা পা করে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে সাথে নিয়ে তিনি হয়ে উঠেন ঢাকার সফল নারী উদ্যোক্তা।

”উদ্যোক্তা হওয়ার গল্প নিয়ে টেকজুমের এবারের আয়োজন।ঢাকার মেয়ে ” তাছপিয়া নিহা ” এর উদ্যোক্তা হয়ে ওঠা নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছেন দিগন্তের বার্তা ২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার। পাঠকদের উদ্দেশ্যে সাক্ষাৎকারটি তুলে ধরা হলো-

আপনার সম্পর্কে যদি কিছু বলতেন?
আসসালামু আলাইকুম ।আমি তাছপিয়া নিহা।আমি ঢাকার মেয়ে।জন্ম এবং ছোট থেকে বড় হয়েছি ঢাকার উত্তরাতে।

উদ্দ্যোক্তা আগ্রহ কিভাবে তৈরি হল?
যে কোন কাজ করার আগে লক্ষস্থীর করতে হয়, মনের মধ্যে বাসনা তেরী করতে হয় ।তেমনি নিজেকে উদ্দ্যোক্তা হিসেবে দেখতে প্রয়োজন সৃজনশীলতা, আকাংঙ্খা আর নেতৃত্বের ক্ষমতা। আমি ২০১৭ সালের দিকে একটা পেইজ খুলি। সেই থেকেই ধীরেধীরে নিজের মধ্যে উদ্দোক্তা হওয়ার ইচ্ছা জাগে।তারপর থেকেই আগ্রহ তৈরী হতে থাকে এই অনলাইন জগতেই নিজেকে কিছু করার।

আপনি এই অনলাইন বিজনেসে কাকে আইডল হিসেবে দেখছেন?
আসলে এখনো আমি কাউকে আইডল হিসেবে দেখি না।কারন আমি সব সময় চেষ্টা করি নিজে নিজে কিছু একটা করার। তবে আমার অনেক সিনিয়র যে সেলার আপু রা আছে তাদেরকে মাঝে মধ্যে ফলো করে থাকি।

কতটুকু সফলতা লাভ করেছেন বলে মনে করেন?
সফলতা কখনো একদিনে আসেনা, সফলতা আসে ধীরে ধীরে, ধৈর্য্য পরিশ্রম আর সততার সাথে গ্রাহকদের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করতে পারলেই একসময় সফলতা আসবে।’যেখানে প্রতিযোগিতা কম আর যে পণ্যের চাহিদা রয়েছে সে রকম ভীন্ন রকম পণ্য গ্রাহকের কাছে তুলে ধরতে পারলেই সফলতা সহজেই আসবে।আর সেই চেষ্টাই করছি।

আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি?

যে কোন কাজ পরিকল্পনা ছাড়া হয়না , আগামী দিনে কি করবো তার একটা পরিকল্পনা করেই সামনে এগুতে হয়। একজন উদ্দোক্তাকে ভবিষৎ পরিকল্পনা সঠিক নির্দেশনায় নিজের শ্রম আর সততার মাধ্যমে লক্ষে পৌঁছানো, বিশ্বস্ততার সাথে এই অনলাইন জগতের বাহিরেও অফলাইন জগতে নিজের একটা বিশ্বস্ত জগত তৈরী করা। আমার পেইজ Taspiya’s World কে ব্র্যান্ডিং এ রুপান্তরিত করা।

আপনার চ্যালেঞ্জগুলো কিভাবে মোকাবিলা করছেন?
উদ্দোক্তা জীবনে অনলাইন  জগতের এখন প্রতিটা পদক্ষেপই চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিতে হচ্ছে কারণ, অনলাইন জগতে বর্তমান সময়ে প্রতিযোগিতা সর্বত্র বিদ্যমান। পণ্য নির্বাাচন থেকে শুরু করে পণ্যের গুণগত মান, পন্যের মানের সাথে  মিল রেখে সঠিক মূল্য নির্ধারণ করে ক্রেতার চাহিদানুযায়ী পণ্য সরবরাহ করা প্রতিটা ক্ষেত্রেই চ্যালেঞ্জ এর মোকাবেলা করতে হয়েছে এবং হচ্ছে। পণ্য সরবরাহের পরে গ্রাহক সন্তুষ্টির বিষয়টিও খুবই গুরুত্বপূর্ণ।কারো যদি পণ্য নিয়ে কোনরকম আপত্তি থাকে, পণ্যের ছবি্র সাথে  রঙ মিল না থাকা ,তাহলে সেটা তাক্ষৎনিকভাবে ফেরত নেয়া, বিকল্প পণ্য বা মূল্য ফেরত নেওয়ার ব্যবস্থা গ্রহন করার মাধ্যমে চ্যালেঞ্জ গুলো মোকাবেলা করেছি । এরকম অভিযোগ গুলো  যত তাড়াতাড়ি সমাধান করা যাবে,একজন উদ্দোক্তা বা  ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের জন্য সেটাই মঙ্গল।

আপনার নতুন প্রডাক্টস গুলো কি কি?
আমি কাজ করছি আমাদের দেশিয় পণ্য নিয়ে এতে রয়েছে মেয়েদের আনস্টীচ থ্রীপিজ, স্টীচ কুরতি,হিজাব।

বর্তমানে কভিড১৯ এ ই- কমার্স?
“কভিড১৯”বা করোনা ভাইরাস একটি মরণব্যাধি ভাইরাস। করোনা ভাইরাসের কারণে অনলাইনে পণ্য কেনার প্রবণতা বেড়ে গেছে, ঠিক অন্যদিকে করোনা ভাইরাসের কারনে লক ডাউনে বসে অনেকেই অবসর সময় কে কাজে লাগিয়ে অনলাইন বিজনেস শুরু করেছেন। করোনাকালে অনলাইনে কেনাকাটা অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি জনপ্রিয় হয়ে ওঠেছে ।কারণ লকডাউন এর সময় নিজেকে এবং পরিবারকে সুরক্ষিত রাখতে অধিকাংশ জনগন  নিত্যপ্রয়োজোনীয় দ্রব্য কেনাকাটায় অনলাইন বা ই-কমার্স কে বেশী প্রাধান্য দিয়েছে। আর এই সুযোগে একটি চক্র মানুষকে ঠকিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেও্যার ঘটনা ও ঘটেছে। এদের কে থামানো গেলেই ই-কমার্স জগত আর বিশ্বস্ত হয়ে উঠবে।

পরিশেষে স্রোতাদের উদ্দ্যেশ্যে কিছু বলুন?
সবাইকে এটাই বলবো নিজের ইচ্ছা শক্তিকে মজবুত করতে হবে এবং সৎ নিয়তে নিজের উপর বিশ্বাস রেখে এগিয়ে যেতে হবে। আর বিশেষ একটা কথা আমাদের প্রতিটা নারীরই উচিত নিজের একটা সুন্দর পরিচয় গড়ে তোলা । কারো পরিচয়ে নই , নিজের পরিচয়ে পরিচিত হতে হবে । তাই  আমরা যারা উদ্যোক্তারা নিজের একটা পরিচয় গড়ে তোলার জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছি আমাদেরকে একটু সাপোর্ট করবেন এটাই আপনাদের থেকে কাম্য । আসুন সবাই সবার ব্যবসায়কে সম্মান করি ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © দিগন্তের বার্তা ২৪
Theme Customized BY Shakil IT Park