1. admin@digonterbarta24.com : admin :
শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ১২:০৯ পূর্বাহ্ন

অনলাইন বিজনেসে নারীরা অগ্রণী ভূমিকা রাখছে – শামীমা স্বর্ণা

দিগন্তের বার্তা ২৪ ডেস্ক
  • সময় : মঙ্গলবার, ২২ জুন, ২০২১
  • ২৯৮ বার পঠিত

দিগন্তেরবার্তা২৪,ডেস্কঃ নোয়াখালীর মেয়ে “শামীমা স্বর্ণা“।যিনি একজন সফল উদ্যোক্তা, সফল ব্যবসায়ী। তিনি ২০১৯ সাল থেকে চালিয়ে যান জীবন সংগ্রামের একটি অংশ অনলাইন ব্যবসা।তবে থেমে থাকেননি তিনি। দুর্গম পথ এবং ব্যার্থতার গ্লানি উপেক্ষা করে আজ সাফল্যর দ্বারপ্রান্তে ” শামীমা স্বর্ণা “।হাটি হাটি পা পা করে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে সাথে নিয়ে তিনি হয়ে উঠেন নোয়াখালী র সফল নারী উদ্যোক্তা।

”উদ্যোক্তা হওয়ার গল্প নিয়ে টেকজুমের এবারের আয়োজন।নোয়াখালীর মেয়ে ” শামীমা স্বর্ণা ” এর উদ্যোক্তা হয়ে ওঠা নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছেন দিগন্তের বার্তা ২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার। পাঠকদের উদ্দেশ্যে সাক্ষাৎকারটি তুলে ধরা হলো-

আপনার সম্পর্কে যদি কিছু বলতেন?

আসসালামু আলাইকুম ।আমি শামীমা স্বর্ণা খুব সাধারন নোয়াখালী জেলার  একটি মেয়ে, জন্মসূত্রে বেড়ে ওঠা হয়েছে কুমিল্লা লাকসাম থানায় , বাবা-মায়ের তিন সন্তানের মধ্যে বড় মেয়ে আমি , ছোটবেলা থেকে নিজের কিছু করার আগ্রহ টা খুব বেশি ছিলো । প্রত্যেকটা মেয়ের জীবনে চলার পথে  সহযোগিতা টা  প্রয়োজন।

উদ্দ্যোক্তা আগ্রহ কিভাবে তৈরি হল?
শৈশব থেকে যখন আপনার মনে একটা বীজ বোপন থাকবে, যে আপনি কিছু একটা করবেন তাহলে সেটা অবশ্যই আপনার পক্ষে সম্ভব, এটা আমি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করে এসেছি।  ছোটবেলা থেকেই স্কুলে যে কোনো প্রোগ্রামের ভলেন্টিয়ার এর কাজ করতাম , সহযোগিতামূলক কাজকর্ম করতাম, তাই আগ্রহ ছিল সমাজসেবামূলক কিছু একটা করব। কিন্তু সেটা যে অনলাইন ভিত্তিক  তৈরি হবে এটা কখনো স্বপ্নে ও  ভাবি নি।এই করোনাকালীন কিছু শীতবস্ত্র বিতরণ করে কিছু মানুষকে সহযোগিতা করার চেষ্টা করেছি।মানুষকে হাতে ধরে কাজ শেখানোর চেষ্টা করেছি। আশা করছি ভবিষ্যতে আরও কিছু নতুন উদ্যোগ হাতে নিবো।

আপনি এই অনলাইন বিজন্যাস এ কাকে আইডল হিসেবে দেখেছেন?

“ডক্টর বদিউল আলম মজুমদার ” সম্পর্কে জেঠা হন। উনি হচ্ছে আমার জীবনে একজন আইডল
ছোটবেলা থেকে দেখেছি কিভাবে সামাজিক কাজকর্ম করেছেন ,সমাজসেবা কি  সেটা তাকে দেখে বোঝা যায়।অনলাইনে একজন উদ্যোক্তা হবো , এটা কখনো আমার ফিউচার ছিল না। ইচ্ছা ছিল সামাজিক কাজকর্মের সাথে নিজেকে জড়ানো।সমাজের নিরীহ মানুষের পাশে থাকার ইচ্ছা ছোটবেলা থেকে কাজ করতো,কিন্তু পরিবেশ পরিস্থিতি অনুকূলে না থাকার কারণে সেটা হয়ে ওঠে নাই।যদি সে রকম সুযোগ-সুবিধা পাই ইনশাল্লাহ এই পথে  আগানোর ইচ্ছা আছে।স্বপ্ন – ইচ্ছা আছে প্রতিটা  গ্রামে গিয়ে অনেক মানুষকে নিয়ে সামনের পথ এগিয়ে যাওয়া হাতে-কলমে তাদেরকে কিছু না কিছু সহযোগিতা করার  যাতে কোনো মানুষ বিপদগ্রস্ত না থাকে।

কতটুকু সফলতা লাভ করেছেন বলে মনে করেন?

“সফলতা ” আলহামদুলিল্লাহ এটা  একেকজনের কাছে একেক রকম হতে পারে,আমার কাছে সফলতা মানে হচ্ছে যেখানে অনলাইন কাজে ডেলিভারি চার্জ মানুষ মানুষকে বিশ্বাস করে দিতে চায় না, সেখানে এই করোনার একটা বছরে আমি শামিমা স্বর্ণা ৪০ থেকে ৫০ জন নারীদেরকে বিনা পুঁজিতে কাজ শিখিয়ে তাদেরকে আমার নিজের পণ্য হাতে তুলে দিয়েছি স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য, আর তারা প্রত্যেকে প্রতি মাসে ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা নন ইনভেস্ট ঘরে বসে ইনকাম করতে পারছে এবং সবচাইতে সফলতার ব্যাপার হচ্ছে তাদের প্রত্যেকের ইনকামের টাকাটা তারা আমার কাছে জমা রাখেন নির্দ্বিধায়,আমি একা কখনো সফল হতে চাই না সবাইকে নিয়ে  সফলতার দ্বারপ্রান্তে যেতে চাই ।খুব ছোট পরিসরে আমার একটা গ্রুপ আছে যেখানে মেয়েরা স্বাধীনভাবে নিশ্চিন্তে কাজ করতে পারে। কোন প্রকার লোভ-লালসা প্রতারিত হয় না।  “Buisness 24 “গ্রুপ”
শুধুমাত্র যারা অনলাইন উদ্যোক্তাদের  সুবিধার কথা মাথায় রেখে পেজ এর পাশাপাশি গ্রুপ নিয়ে কাজ করছি।আমার কাছে সফলতা হচ্ছে বিশ্বাস আর ভরসা,আল্লাহর রহমতে এই জিনিসটা আমি অনেক পেয়েছি তাই আমি বলবো আমি সফলতা বলতে   অনেক মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি।অনেক নারীদের সহযোগিতা করতে পেরেছি, অনেক নারীদের সাহস এবং শক্তি যোগাতে পেরেছি  আলহামদুলিল্লাহ।

আপনার ভবিষৎ পরকল্পনা কি?
“ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা”অনলাইনের পাশাপাশি অফলাইনে যারা নেটওয়ার্কের বাইরে আছে তাদের কাছ পর্যন্ত যাওয়া আর তাদের সঙ্গে মিশে  হাতে হাত রেখে, কাঁধে কাঁধ রেখে একসাথে তাদেরকে নিয়ে এগিয়ে চলা।আর কিছু আপাতত প্ল্যানিং নাই।

আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা যদি বলতেন?
কুমিল্লা লাকসাম থানা থেকে মাধ্যমিক,
উচ্চমাধ্যমিক নোয়াখালী থেকে করা
Noakhali Government women’s college
এরইমধ্যে পরিবার থেকে বিয়ে দেওয়া হয়েছে তারপরে প্রথম বাচ্চা হওয়ার পরে অনেক সংগ্রাম করার পরে বি এস এস কমপ্লিট করেছি ঢাকা থেকে। B .S.S Government Bangla college
বিয়ের পর পরিবার থেকে যদিও কখনো বাধা দেওয়া হয়নি কিন্তু আমি যাতে পড়াশোনা শেষ করি সব চাইতে বেশি ইচ্ছা ছিল আমার মায়ের। তার অবদান অপরিসীম। প্রত্যেকটা মায়েরা সন্তানের জন্য অনেক কিছু করে কিন্তু হয়তোবা আমার মা একটু বেশি করেছে। আমার বাচ্চার বয়স 1 মাস  তখন আমার ফরম ফিলাপের ডেট ছিলো ,আমার মা আমাকে নিয়ে আমার বাচ্চা কে নিয়ে কলেজের অফিসিয়াল সব কাজে সহযোগিতা করেছে
তার জন্যই হয়তো বা শেষ অব্দি যেতে পেরেছি।

আপনার চ্যালেঞ্জগুলো কিভাবে মোকাবিলা করছেন?
কাজের সুবাদে অনেক সময় অনেক সমস্যায় পড়তে হয়েছে আর সেই সমস্যাগুলো সব সময় আমি চ্যালেঞ্জ আকারে  নিয়েছি,যেমন – অন্য কেউ যদি পারে তুমি কেন পারবে না, অন্যের দ্বারা যদি এটা সম্ভব হয় তোমার দ্বারা কেন নয়,আমার যে সঙ্গীরা আমার সাথে কাজ করে তাদেরকে কখনোই হেরে যেতে দেই নি।কাজ করার পলিসিতে একভাবে হেরে গেলে অন্য ভাবে আগানোর চেষ্টা করো।আমার জীবনে চ্যালেঞ্জ বলতে সবাইকে নিয়ে মোকাবেলা করা। তবে সেটা আমি একা নয় সবাইকে নিয়ে আগানোর চেষ্টা করছি।

আপনার নতুন প্রডাক্টস গুলো কি কি?
দেশীয় পণ্য ড্রেস, শাড়ী, বিভিন্ন বিদেশি  কসমেটিকস এবং মেকআপ আইটেম নিয়ে  কাজ করছি। তবে ফিউচারে দেশীয় কিছু  ক্রিয়েটিভিটির কিছু জিনিস নিয়ে কাজ করার প্ল্যানিংটা চলছে । খুব শীঘ্রই সেই কর্মসংস্থান টা  আমরা চালু করবো ।

বর্তমানে কভিড১৯ এ ই- কমার্স?
কোভিড ১৯ ই-কমার্স  না এরকম কিছু না তবে এ সময়ে এতোটুকু বলতে পারব হাজার হাজার নারীরা নতুন করে কাজ শুরু করতে পেরেছে, হাজার হাজার নারী তাদের পরিবারের হাল ধরেছে এটা আমার নিজের চোখে দেখা আমার আশেপাশে অনেক বোন আছে যারা শুধুমাত্র অনলাইনে কাজ শুরু করেছে নিজের পরিবারকে সহযোগিতা করবে বলে।

পরিশেষে স্রোতাদের উদ্দ্যেশ্যে কিছু বলুন?পরিশেষে আমি শ্রোতাদের উদ্দেশ্যে একটাই কথা বলতে চাই আপনি কি করবেন আপনি শুধুমাত্র সেটা নিয়ে ভাবেন আপনার এই কাজটা কে কে কিভাবে নিবে কে ভালো বলেছে কে মন্দ বলেছে এসব এক কান দেবেন না আপনার যদি লক্ষ থাকে আকাশ ছুবেন তাহলে আপনার তার কাছ পর্যন্ত হলেও যেতে পারবেন তাই আগে লক্ষ টা ঠিক  করবেন।তবে তার দ্বারপ্রান্ত পর্যন্ত আপনি যেতে  পারবেন।আমার কাজ করার ইচ্ছে ছিল ছোটবেলা থেকেই কিন্তু সে ইচ্ছা টা কে মাটি চাপা দিয়ে রাখা ছিল, বিয়ের 9 বছর পর  জীবনে এরকম একজন থাকা দরকার আছে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © দিগন্তের বার্তা ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD