1. admin@digonterbarta24.com : admin :
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৭:০৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
নিরাপদ সড়ক উপহার দেয়া আমাদের সকলের দায়িত্বঃ উপ-পরিচালক জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস সিএমপি’র ট্রাফিক বিভাগের লিফলেট বিতরণ খামারপাড়া বিশ্বলতা জনকল্যাণ বৌদ্ধ বিহারে ৩২তম দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত বেগম খালেদা জিয়া’র সুস্থতা কামনায় গাজীপুর মহানগর ছাত্রদলের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল নলছিটিতে আন্তর্জাতিক গ্রামীণ নারী দিবস পালিত ফ্রেন্ডশিপ’র উদ্যোগে প্যারাভেট প্রশিক্ষণের সনদ বিতরণ রাঙ্গামাটিতে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস পালিত ভুলতা জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষে হাইওয়ে পুলিশ ফাড়ির নানা কর্মসূচি পালিত শ্রীমঙ্গলে নিরাপদ সড়কের দাবিতে বর্ণাঢ্য র‌্যালী শ্রীমঙ্গলে রামকৃষ্ণ সেবা আশ্রমে মৌন প্রতিবাদ

সাভারের সফল সংগ্রামী নারী উদ্যোক্তা “তামান্না রহমান সুমাইয়া “

দিগন্তের বার্তা ২৪ ডেস্ক
  • সময় : শনিবার, ৮ মে, ২০২১
  • ৫৬৭ বার পঠিত

দিগন্তেরবার্তা২৪,ডেস্কঃ সাভারের মেয়ে “তামান্না রহমান সুমাইয়া”।যিনি একজন সফল উদ্যোক্তা, সফল ব্যবসায়ী। তিনি ২০১৭ সাল থেকে চালিয়ে যান জীবন সংগ্রামের একটি অংশ অনলাইন ব্যবসা।তবে থেমে থাকেননি তিনি। দুর্গম পথ এবং ব্যার্থতার গ্লানি উপেক্ষা করে আজ সাফল্যর দ্বারপ্রান্তে ” তামান্না রহমান সুমাইয়া “।হাটি হাটি পা পা করে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে সাথে নিয়ে তিনি হয়ে উঠেন সাভারের সফল নারী উদ্যোক্তা।

”উদ্যোক্তা হওয়ার গল্প নিয়ে টেকজুমের এবারের আয়োজন।সাভারের মেয়ে ” তামান্না রহমান সুমাইয়া ” এর উদ্যোক্তা হয়ে ওঠা নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছেন দিগন্তের বার্তা ২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার। পাঠকদের উদ্দেশ্যে সাক্ষাৎকারটি তুলে ধরা হলো-

আপনার সম্পর্কে যদি কিছু বলতেন?
আসসালামু আলাইকুম,আমি তামান্না রহমান সুমাইয়া,সাভার উপজেলা বাড্ডা ভাটপারা থেকে,আমি কাজ করতেছি অনলাইন টেইলর্স নিয়ে,,তার পাশাপাশি কাস্টমাইজড লেডিস ড্রেস, বেবি ড্রেস, কুর্তি,মেক্সি,ইত্যাদি নিয়ে,আমার পেজ Tailoring House Form Savar,আমার পেজে ঘুরে আসার জন্য সকলকে অনুরোধ করা হল।

উদ্যোক্তা আগ্রহ কি ভাবে তৈরি হলো?
ছোট বেলা থেকেই আমার একটা সপ্ন ছিলো নিজে কিছু করার,কারো কাছে হাত পাতার চেয়ে নিজে কিছু একটা করার সপ্ন টায় যেনো পুরন হলো বিয়ের পর,মধ্যবিত্ত ফ্যামিলিতে বিয়ে হয়েছে,হাজবেন্ড এর চাকরির সেলারি কম ছিলো,সে জন্য নিজের সপ্ন টা মনে হয় তারাতাড়ির পুরন হলো,হাসবেন্ড এর চেলারির ইসু ধরেই আমি শুরু করি টেইলরিং টা,ঘরে থাকা শ্বাশুড়ির মেশিন দিয়েই শুরু করি আমার সপ্নের পথ চলা, ১বছর যেতে না যেতেই  আমি অনলাইন এর মাধ্যমে শুরু করি আমার টেইলরিং, আলহামদুলিল্লাহ এখন ফ্যামিলির পুরো সাপোর্ট নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি আমি।

আপনি এই অনলাইন বিজনেস কাকে আইডল হিসাবে দেখছেন?

আমি নিজের আইডল মনে করি আমার বড়ো আপু ( হাসবেন্ড এর বোন) যে কিনা তার নিজের এলাকার জাকে পায় তাকেই বলতো যে আমার ছোট ভাইয়ের বউ অনেক সুন্দর ড্রেস বানায় তার কাছে বানাতে দিয়েন,তার হাত ধরেই আমি শুরু করি টেইলরিং এর হোম সার্ভিস,, সে সবসময় আমার পাশে ছিলো যেখানে যায় সেখান এই আমার নামে খুব প্রশংসা করে,সেই প্রসংসার সুভাধে আমি কাস্টমার ও পেয়ে যাই।সে আমার জীবনের সবচেয়ে বড়ো ইস্পায়ার,তাকে আমি মন থেকে স্রদ্বা করি,তার জন্যই আমি আজ এই পর্যন্ত আসছি,আর পাশাপাশি তো হাসবেন্ড এর সাপোর্ট আছেই।

কতটুকু সফলতা লাভ করেছেন বলে মনে হয়?
আসলে সফল তখনি নিযেকে ভাবা যায় যখন কিনা সে পুরিপুর্ন ভাবে সার্থক,আমি নিজেকে এখনেও অনেক দূর এগিয়ে নিতে চাই, সে জন্য হয়তো সফলতা ভাবতে পারিনক,সিখার কোন শেষ নেই যতো দেখি ততো শিখতে মনে চায়,এতো শিখায় মাজে সফলত্ব এখনো নিজের কাছে আসেনি,তবে আলহামদুলিল্লাহ অনেকটাই নিজেকে সফলতা ভেবেছি,কিন্তু পরিপুর্ন ভাবে না।

আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি?
ভবিষ্যৎ নিয়ে সবার এই পরিকল্পনা থাকে,, তবে আল্লাহ যদি সহায় হন তবেই তা সম্ভব হয়,নিজেকে সমাজের মাঝে একজন পরতিসঠিত নারী হিসাবে দেখতে চাই,প্রতিটি নাড়ীর ইস্পায়ার হতে চাই,
সৎ  ভাবে ব্যাবসা করতে চাই,ইনশাআল্লাহ আমি পারবো সে বিশ্বাস নিয়েই এগিয়ে যাচ্ছি।

আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা বলুন?
পড়াশোনা করার খুব ইচ্ছা করলেও তা হয়তো করা উয়ে উঠেনি,গাজীপুরের একটা স্কুলে ক্লাশ ১০ পর্যন্ত পরা কিন্তু পরিক্ষা দেওয়া হয়নি,তারপর মাদ্রাসায় কিছু পড়াশোনা করি।

আপনার চ্যালেঞ্জ গুলো কিভাবে মোকাবেলা করছেন?
কোন কাজ এই ছোট টা, আমি সেটা ভেবেই কাজ করে যাচ্ছি,মনের মধ্যে শুধু নিজের সপ্ন পুরোন এর আশা,সেই আশা নিয়েই অনেক সমস্যা মোকাবেলা করেও আমি চ্যালেঞ্জ নিয়েছি আমি হাল ছাড়বো না,কাজ করেই যাবো এতে জা হওয়ার হবে,ইনশাআল্লাহ আমি পারতেছি, বাকিটা সবার দোয়া।

আপনার নতুন প্রোডাক্ট গুলো কি কি?
আমি যেহেতু টেইলরিং টা পারি,সে জন্য আমি সব প্রডাক্ট নিয়েই কাজ করতে পারি,অনলাইন এ যেই টা একটু ভালো লাগে সেটা নিয়েই নতুন ভাবে শুরু করি।

বর্তমানে কভিড১৯ এ ই-কমার্স?
কোভিড ১৯ যদিও কিছু কিছু ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা কিন্তু তারপরও  সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে চেষ্টা করছি যাতে ব্যবসাটাকে আরো দ্রুত সম্প্রসারণ করা যায় কিনা এবং যেহেতু উদ্যোক্তার একটা বড় গুন  হচ্ছে যেকোনো পরিস্থিতিতে কে কাজে লাগানো ঠিক আমিও সেটাই করছি যেহেতু এখন মহামারির জন্য সবাই বের হচ্ছে না এবং শপিং মল গুলো থেকেও বিরত থাকছে তাই  সুযোগকে কাজে লাগিয়ে তাদের প্রয়োজনীয় নিত্য নতুন জামা আমার জামা কাপড় থেকে শুরু করে শাড়ি, কসমেটিক্স সবকিছু আমি আমার পেইজেই রাখছি । যাতে স্বাধ্যর মধ্যে একপেইজ থেকেই  নিতে পারে।

পরিশেষে স্রোতাদের উদ্দ্যেশ্যে কিছু বলুন?
সবাইকে এটাই বলবো নিজের ইচ্ছা শক্তিকে মজবুত করতে হবে এবং সৎ নিয়তে নিজের উপর বিশ্বাস রেখে এগিয়ে যেতে হবে। আর বিশেষ একটা কথা আমাদের প্রতিটা নারীরই উচিত নিজের একটা সুন্দর পরিচয় গড়ে তোলা।কারো পরিচয়ে নই , নিজের পরিচয়ে পরিচিত হতে হবে। তাই  আমরা যারা উদ্যোক্তারা নিজের একটা পরিচয় গড়ে তোলার জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছি আমাদেরকে একটু সাপোর্ট করবেন এটাই আপনাদের থেকে কাম্য।আসুন সবাই সবার ব্যবসায়কে সম্মান করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © দিগন্তের বার্তা ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD