1. admin@digonterbarta24.com : admin :
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৭:২০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
নিরাপদ সড়ক উপহার দেয়া আমাদের সকলের দায়িত্বঃ উপ-পরিচালক জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস সিএমপি’র ট্রাফিক বিভাগের লিফলেট বিতরণ খামারপাড়া বিশ্বলতা জনকল্যাণ বৌদ্ধ বিহারে ৩২তম দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত বেগম খালেদা জিয়া’র সুস্থতা কামনায় গাজীপুর মহানগর ছাত্রদলের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল নলছিটিতে আন্তর্জাতিক গ্রামীণ নারী দিবস পালিত ফ্রেন্ডশিপ’র উদ্যোগে প্যারাভেট প্রশিক্ষণের সনদ বিতরণ রাঙ্গামাটিতে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস পালিত ভুলতা জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষে হাইওয়ে পুলিশ ফাড়ির নানা কর্মসূচি পালিত শ্রীমঙ্গলে নিরাপদ সড়কের দাবিতে বর্ণাঢ্য র‌্যালী শ্রীমঙ্গলে রামকৃষ্ণ সেবা আশ্রমে মৌন প্রতিবাদ

ঢাকার সফল সংগ্রামী নারী উদ্যোক্তা ” জান্নাতুল ফেরদৌস তিবা”

দিগন্তের বার্তা ২৪ ডেস্ক
  • সময় : শুক্রবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২১
  • ১৮৩ বার পঠিত

বিবিসিনিউজ২৪,ডেস্কঃ ঢাকার মেয়ে “জান্নাতুল ফেরদৌস তিবা”।যিনি একজন সফল উদ্যোক্তা, সফল ব্যবসায়ী। তিনি ২০২০ সাল থেকে পড়াশোনার পাশাপাশি চালিয়ে যান জীবন সংগ্রামের একটি অংশ অনলাইন ব্যবসা।তবে থেমে থাকেননি তিনি। দুর্গম পথ এবং ব্যার্থতার গ্লানি উপেক্ষা করে আজ সাফল্যর দ্বারপ্রান্তে ” জান্নাতুল ফেরদৌস তিবা”।হাটি হাটি পা পা করে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে সাথে নিয়ে তিনি হয়ে উঠেন ঢাকার সফল নারী উদ্যোক্তা।

”উদ্যোক্তা হওয়ার গল্প নিয়ে টেকজুমের এবারের আয়োজন।ঢাকার মেয়ে ” জান্নাতুল ফেরদৌস তিবা ” এর উদ্যোক্তা হয়ে ওঠা নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছেন দিগন্তের বার্তা ২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার। পাঠকদের উদ্দেশ্যে সাক্ষাৎকারটি তুলে ধরা হলো-

আপনার সম্পর্কে যদি কিছু বলতেন?
আসসালামু আলাইকুম।আমি জান্নাতুল ফেরদৌস তিবা। আমার জন্মস্থান ঢাকার মিরপুর এ। বর্তমানে আমি মিরপুর এ বসবাস করি।

উদ্দোক্তা আগ্রহ কিভাবে তৈরি হলো?
ছোটবেলা থেকেই আমি আঁকিবুঁকি খুব ভালো করতাম। আর হাতের তৈরি বিভিন্ন জিনিস বানাতাম। এগুলো ছিলো আমার ছোট বেলার শখ। কিন্তু কখনো ভাবি নি ছোট বেলার শখ কে আমি আমার প্রোফেশন এ নিবো। আমি মধ্যবিত্ত ফ্যামিলির মেয়ে,ফিনানশিয়ালি প্রবলেম এর কারনে আমার পড়ালেখা আপাদত বন্ধ। আমি কিছু টিউশন ও করাই। তারপর শুরু হলো করোনা মহামারী। করোনার জন্য যখন সব কিছু বন্ধ হয়ে গেলো আমার টিউশন ও অফ হয়ে গেলো তখন আমার মাথায় বুদ্ধি আসলো আমি তো হাতের গহনা বানাতে পারি, আমি একটা পেজ খুলি তারপর লকডাউন যখন শেষ হলো আমি আমার জমানো ৬০০ টাকা দিয়ে আমার ছোট একটি বিজনেস শুরু করি।

আপনি অনলাইন বিজনেস এ কাকে আইডল হিসেবে দেখেছেন?
আমি আইডল হিসেবে তেমন কাউকেই দেখি নি কিন্তু হ্যাঁ অনেক সফল উদ্দোক্তা আপুদের থেকে আমি অনেক কিছু শিখেছি এবং এখনো শিখছি এবং আরো অনেক কিছু শেখার আছে।

কতটুকু সফলতা লাভ করেছেন বলে মনে করেন?
আমার বিজনেস এর বেশি বয়স হয় নি এখনো, এক বছর ও হয় নি এখনো, কিন্তু কতটুকু সফলতা লাভ করেছি তা আমি জানিনা কিন্তু আমি আমার বাবা মা এর কিছুটা সহায়তা অবশ্যই করতে পারছি, নিজের পড়াশোনা চালাতে না পারলে ও নিজের যাবতীয় খরচ এবং বাবা মা এর কিছুটা সহায়তা আমি অবশ্যই পারছি এটাই আমার সবচেয়ে বড় সফলতা আমি বলে মনে করি। আর আমি কাস্টমার দের কখনো ঠকাইনি, নিজের সততা দিয়ে কাজ করেছি আর তাদের ভালোবাসা অনেক পেয়েছি এই অল্প সময়ে।

আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি?
আমার ভবিষ্যৎ এ ইচ্ছা আছে, আমি” তিবুস গ্যালারী” নাম এ একটা শো-রুম দিবো আল্লাহ যদি আমাকে সেই তোফিক দান করেন এবং যারা অসহায় তাদের পাশে দারাবো ইনশাআল্লাহ। আমি বর্তমানে অনলাইন এর মাধ্যমেই সেল দিচ্ছি। ইনশাআল্লাহ একদিন আমি শো-রুম এবং অনলাইন দুইটাই সেল দিবো আল্লাহ আমাকে   তৌফিক দান করলে।

আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা কি?
আমি হযরত শাহ আলি গার্লস হাই স্কুল থেকে এস এস সি পাশ করেছি, সারোজ ইন্টারন্যাশনাল থেকে এইচ এস সি পাশ করেছি এবং বর্তমানে আমি বি উ বি টি থেকে পড়াশোনা করতাম কিন্তু ফিনানশিয়ালি প্রব্লেম এর কারনে আমার অনার্স টা আপাতত অফ। কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি আমি শুরু করবো ইনশাআল্লাহ।

আপনার চ্যালেঞ্জ গুলো কিভাবে মোকাবেলা করেছেন?
আল্লাহ এর অশেষ রহমতে আমি কখনো বাধার সম্মুক্ষিন হয় নি। আমার মা-বাবার দোয়া, তাদের সহযোগীতা সবসময় আমার সাথে ছিলো আর আছে। আর সবচেয়ে বেশি যে মানুষ টি আমাকে সাপোর্ট করেছে তিনি আমার হবু জামাই। তাদের ভালোবাসা, দোয়া, আল্লাহর রহমতে আমি আমার সপ্ন পুরন করতে পারবো ইনশাআল্লাহ।

আপনার নতুন প্রোডাক্ট গুলো কি কি?
আমি হাতের তৈরি গহনা তেই বেশি ফোকাস করছি কারণ এটার জন্যই আমি এতদুর আসতে পেরেছি আলহামদুলিল্লাহ। কিন্তু ইচ্ছা আছে হাতের তৈরি গহনার পাশা পাশি আমি গার্লস আইটেম নিয়ে কাজ করবো ইনশাআল্লাহ।

বর্তমানে কভিড-১৯ এ ই কমার্স?
করোনা একটি মহামারি রোগ। করোনা আমাদের পুরো দেশকে নিস্তব্ধ করে দিয়েছে। কিন্তু অনলাইন এর কেনাকাটা তে সবার আকর্ষণ অনেক বেড়ে গিয়েছে তাই আমরা সতর্কতা অবলম্বন করে আমাদের কাজ করে যাচ্ছি। ইনশাআল্লাহ দেশ টা পুরোপুরি ঠিক হলে আরো ভালোভাবে কাজ করবো কারণ অনেক টা পথ আগানো এখনো বাকি।

পরিশেষে শ্রোতাদের  উদ্দেশ্যে কিছু বলুন?
বিজনেস এর মেইন জিনিস টাই হচ্ছে সততা আর ধৈর্য নিয়ে কাজ করা। সততা আর ধৈর্য নিয়ে কাজ করলে আপনি অবশ্যই একদিন বড় উদ্দোক্তা হয়ে উঠবেন। আর যারা এখন নতুন বিজনেস স্টার্ট করতে চাচ্ছেন বা করছেন তাদের একটা কথাই বলবো আল্লাহ এর নাম নিয়ে আপনার সততা আর ধৈর্য নিয়ে কাজ করতে থাকেন সফল আপনি হবেন ইনশআল্লাহ। একটা বাক্য আছে ঃ “পরিশ্রম সৌভাগ্যের চাবিকাঠি ” তাই সৎ ভাবে ধৈর্য নিয়ে কাজ করন একদিন অবশ্যই সফল হবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © দিগন্তের বার্তা ২৪
Theme Customized BY Theme Park BD